নাজমুন নেসা পিয়ারি

জ্ঞানীপিডিয়া থেকে
নাজমুন নেসা পিয়ারি
জাতীয়তাবাংলাদেশি
পরিচিতির কারণসাহিত্যিক
পুরস্কারএকুশে পদক (২০২০)

নাজমুন নেসা পিয়ারি একজন বাংলাদেশি লেখক, সাংবাদিক এবং সাংস্কৃতিক সংগঠক।<ref>"প্রবাসী লেখক নাজমুন নেসা পিয়ারি"বিবিসি বাংলা। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ </ref> ভাষা ও সাহিত্যে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে ২০২০ সালে একুশে পদক প্রদান করে।<ref>"একুশে পদক পাচ্ছেন কিংবদন্তি চিকিৎসা বিজ্ঞানী ডা. সায়েবা"যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ </ref> ২০১৬ সালে তিনি বাংলা একাডেমি প্রবর্তিত সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ সাহিত্য পুরস্কার লাভ করেন।<ref>"সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ সাহিত্য পুরস্কার পেলেন শামীম আজাদ ও নাসমুন নেসা পিয়ারি"ইত্তেফাক। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ </ref>

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা | উৎস সম্পাদনা]

পিয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণ রসায়ন থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।<ref name="বাংলাদেশ প্রতিদিন"/> শিক্ষাজীবন শেষ করে সিদ্ধেশ্বরী কলেজে শিক্ষিকা হিসেবে যোগদান করেন। পরে ইডেন মহিলা কলেজে কিছুদিন শিক্ষকতা করেন। ১৯৮০ সাল থেকে পত্রিকাতে নিয়মিত লেখালেখি শুরু করেন।<ref name="বাংলাদেশ প্রতিদিন">"তোমাকে অভিবাদন হে প্রিয়তমা"বাংলাদেশ প্রতিদিন। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ </ref>

কর্মজীবন[সম্পাদনা | উৎস সম্পাদনা]

পিয়ারী ১৯৭৬ সালে জার্মান ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলের বাংলা বিভাগে সাংবাদিক হিসেবে যোগদান করেন।<ref name="বাংলাদেশ প্রতিদিন"/> তিন বছর বাংলা বিভাগে কাজ করার পর জার্মান ও ইংরেজি বিভাগেও কাজ করেন। ১৯৯০ সালে তিনি প্রথম বিদেশী হিসেবে ডয়েচে ভেলের মার্কেটিং এবং গণসংযোগ বিভাগের সম্পাদক হিসেবে যোগদান করেন। ২০০৩ সাল এ বিভাগে কাজ করার পর বার্লিনে চলে যান। ২০০৫ সালে তার প্রথম অনুবাদ গ্রন্থ ‘পিয়ানো টিচার’ প্রকাশিত হয়। এর মূল রচয়িতা ছিলেন এলফ্রিডে জেলিনেকের লেখা। ২০১৯ সালের নভেম্বর পর্যন্ত তিনি চারটি গ্রন্থ অনুবাদ করেছেন।<ref name="বাংলাদেশ প্রতিদিন"/>

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা | উৎস সম্পাদনা]

তিনি ১৯৭১ সালে শহীদ কাদরীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।<ref name="বাংলাদেশ প্রতিদিন"/> ১৯৭৪ সালে ‘তোমাকে অভিবাদন প্রিয়তমা’ কবিতাটি কাদরী তাকে উৎসর্গ করেন।<ref name="বাংলাদেশ প্রতিদিন"/><ref>"তোমাকে অভিবাদন প্রিয়তমা কবিতাটি আমাকে উৎসর্গ করেছিল শহীদ কাদরী – নাজমুন নেসা পিয়ারি"ভিওএ। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ </ref> কবিতাটি সে সময় জনপ্রিয়তা লাভ করে।<ref name="বাংলাদেশ প্রতিদিন"/> পরবর্তীতে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। পিয়ারী বর্তমানে জার্মানিতে বসবাস করেন।<ref>"দুই প্রবাসীর একুশে পদক পাওয়ার খবরে যুক্তরাষ্ট্রে উচ্ছ্বাস"বিডিনিউজ২৪.কম। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। </ref>

গ্রন্থ[সম্পাদনা | উৎস সম্পাদনা]

  • সত্তার অসীম আকাশ : জার্মানবাসী বাঙ্গালির মুক্তিযুদ্ধ (২০০৯)
  • প্রেমে-অপ্রেমে
  • শহীদ কাদরীর একশ কবিতা (২০১৮)

সম্মাননা[সম্পাদনা | উৎস সম্পাদনা]

  • সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ সাহিত্য পুরস্কার (২০১৬)
  • একুশে পদক (২০২০)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা | উৎস সম্পাদনা]

<references group=""></references>

টেমপ্লেট:একুশে পদক বিজয়ী ২০২০